রূপচর্চায় পুদিনা পাতা ( তৈলাক্ত ত্বক)


পুদিনা বা মিণ্ট মানেই আমার কাছে ফ্রেশনেস। এই পাতার গন্ধ আমার দারুণ লাগে। নিমেষেই যেনো সতেজ করে তোলে। শুধুমাত্র সতেজতা জন্য নয় এই পাতার রয়েছে অনেক  রোগ প্রতিরোধ কার্যকরী ভূমিকাতবে আজ এই পাতার রোগ প্রতিরোধ কার্যকরীতা  নিয়ে লিখছি না। আজকের ব্লগ, কি করে এই পাতা ত্বকের যত্নে ব্যবহার করতে পারি সেই নিয়েই।

পুদিনা পাতা তৈলাক্ত ত্বকের জন্য খুব বেশি উপকারি। বিশেষ করে ব্রণ, বা ব্রণের দাগ, ব্ল্যাকহেডস বা হোয়াটহেডস, ত্বকের বলিরেখা দূর করতে পুদিনা পাতা সাহায্য করে।



তৈলাক্ত ত্বকের জন্য টোনার

কিছু দিন আগে আমি দুটি পোস্ট লিখেছিলাম যে, ত্বকে কেন টোনারব্যবহার করা হয় বাজারে পাওয়া যায় এমন কয়েকটি ব্রণযুক্ত ত্বকের ভালো টোনারের নাম। আমার কাছে বেশ কয়েকজন  তৈলাক্ত ত্বকের ঘরোয়া টোনার কি করে বানানো যায়, সেই রেসিপি জানতে চান। পুদিনা পাতা দিয়ে এই টোনার বানানোটা খুব সিম্পল। এর জন্য সামান্য পুদিনা পাতা, কয়েক টুকরো লেবু লাগবে। প্রথমেই জলের মধ্যে পুদিনা পাতা নিয়ে জল গরম করে নিন। সেই জল নামিয়ে তার মধ্যে লেবু ছেড়ে দিন। ঠাণ্ডা হয়ে গেলে এই জল টোনার হিসাবে ব্যবহার করুন। তৈলাক্ত ত্বকের জন্য এটি একটি আদর্শ টোনার, আবার যাদের টি-জোন তৈলাক্ত তারাও এই টোনার ব্যবহার করতে পারে। এটি ত্বকে সতেজ রাখবে, ত্বককে অয়েল ফ্রি রাখে, এবং যাদের পিম্পল এর সমস্যা আছে এতে তাও দূর হবে।



ব্রণের জন্য প্যাক

ব্রণ সারানোর প্যাক বানাতে গেলে যা যা  লাগবে

৪ থেকে ৫ টি পুদিনা পাতা
১ চামচ গোলাপ জল
২ চামচ টক দই ও এক চিমটি চন্দন গুঁড়ো

এখানে দই এর পরিবর্তে টমাটোর রসও ব্যবহার করা যাবে।

সমস্ত উপাদন মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। এই প্যাকটি শুধু ব্রণের উপরে লাগিয়ে রাখতে চাইলে সারা রাত লাগিয়ে রাখা যেতে পারে। নয় তো সারা মুখে ১৫ থেকে ২০ মিনিট রেখে জল দিয়ে ধুয়ে নি।

পুদিনাতে ব্রণ প্রতিরোধী যে স্যালিসিলিক অ্যাসিড রয়েছে তা দ্রুত ব্রণ সারাতে সাহায্য করে।

খুব বেশি ব্রণের সমস্যা থাকলে প্রতিদিন শুধু ব্রণতেই লাগান। নয় তো সপ্তাহে  দিন এই প্যাক ব্যবহার করা যাবে

ব্যাকহেডস দূর করতে

যা যা লাগবে

৫ থেকে ৬ টি পুদিনা পাতা
১ চামচ লেবুর রস
১ চামচ শসার
১ চা চামচ মুলতানি মাটি
 চামচ দই

পুদিনা পাতার পেস্ট তৈরি করে নিন। এতে লেবুর রসশসা রসমুলতানি মাটি এবং দই মিশিয়ে নিয়ে একটি ঘন পেস্ট তৈরি করুন। এবার এই পেস্ট ব্যাকহেডসের স্থানে লাগিয়ে রাখুন ২০ মিনিট। হালকা গরম জলে ধুয়ে নিন। এই পদ্ধতি একদিন অন্তর অন্তর ফলো করুন।

যে টিপসগুলি আজ সেয়ার করলাম এই টিপসগুলি সব ধরনের ত্বকে ব্যবহার করা যাবে। তবে সংবেদনশীল বা 
এলার্জিজনিত ত্বকে যে সমস্ত সামগ্রীগুলি সুট করে না, সেই সব উপাদানগুলি বাদ দিয়ে প্যাকগুলি বানিয়ে
ব্যবহার করতে হবে।

কেমন লাগলো আজকের টিপসগুলি জানাবেন। আপনাদের লাইক, কমেন্ট আমাকে অনেক অনেক উৎসাহিত করে।






একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

1 মন্তব্য