তৈলাক্ত ত্বকের ফেসপ্যাক


তৈলাক্ত ত্বকের যত্ন কি ভাবে করবেন, এই প্রসঙ্গে আগের পর্বে আমি রেডিমেড প্রডাক্টের ব্যবহার নিয়ে কিছু টিপস শেয়ার করেছিলাম। আজকের পর্বে  কিছু ঘরোয়া যত্নের উপায় শেয়ার করবো। 
Example HTML page


ফেসপ্যাক :

মুলতানি মাটির ফেসপ্যাক

তৈলাক্ত ত্বকের সঙ্গে  যাদের ব্রণ সমস্যা রয়েছে তাদের জন্য এই প্যাকটি। মুলতানি মাটি  সাধারণ দোকানে সহজলভ্য।

উপকরণ

মুলতানি মাটি
গোলাপ জল
লেবুর রস

পদ্ধতি

লেবুর রস ও  গোলাপ জল মিশিয়ে মুলতানি মাটির একটি পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্ট মুখে লাগিয়ে রাখুন ১৫ থেকে ২০ মিনিটের মতো। মুলতানি মাটি ত্বকের বাড়তি তেল  শুষে নেয় এবং ব্রণগুলিকেও শুকিয়ে তুলতে সাহায্য করে। গোলাপ জল ত্বকের আদ্রতা বজায় রাখতে সাহায্য করে। যেখানে লেবুর রস দাগ সারায়।

ব্রণর জন্য আরও দুটি সহজ প্যাক হল,

পুদিনা ফেস প্যাক 

উপকরণ

থেঁতো করা পুদিনাপাতা
মধু

পদ্ধতি

কিছু পুদিনা পাতা থেঁতো করে নিয়ে তাতে মধু মিশিয়ে নিন। গোটা মুখে লাগাতে পারেন অথবা শুধু ব্রণের উপরে লাগিয়ে রাখুন ২০ মিনিট। এই প্যাকটি খুব তাড়াতাড়ি ব্রণ সারাতে সাহায্য করে।

লেবুর রস ও মধু ফেস মাস্ক

উপকরণ

লেবুর রস
মধু
গোলাপ জল প্রয়োজনে

পদ্ধতি

লেবুর রস ও মধু এক সঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগান। ত্বক যদি সেন্সেটিভ হয় তাহলে লেবুর রসের সঙ্গে গোলাপ জল মিশিয়ে নিন। 

এছাড়াও আর যা যা করতে পারেন, 

শসার রস তৈলাক্ততা দূর করতে খুবই কার্যকর। তাই প্রতিদিন বাইরে থেকে এসে শসার রস দিয়ে মুখ পরিষ্কার করতে পারেন। এটি টোনার হিসাবেও কাজ করে। শসার রস দিয়ে আইস কিউব বানিয়েও গরমকালে ব্যবহার করতে পারেন। কি করে আইস কিউব বানাবেন নীচের লিঙ্কে দিয়ে দেওয়া হল।
তৈলাক্ত ত্বকে স্ক্রাব করতে হলে ওটস বা  চালের গুঁড়া ব্যবহার করতে পারেন। শসার রসের সঙ্গে ওটস বা  চালের গুঁড়া ও মধু মিশিয়ে নিয়ে সপ্তাহে তিন দিন স্ক্রাব করুন। এতে ব্ল্যাকহেডস ও হোয়াইটহেডস দূর হয়ে যাবে। খেয়াল রাখতে হবে, ব্রণ থাকলে স্ক্রাব করা যাবে না। 

লোমকূপ বড় দেখানোর সমস্যা হলে একটু বাড়তি যত্ন নিতে হবে। এ জন্য ডিমের সাদা অংশ মুখে লাগিয়ে একটি টিস্যু পেপার চেপে ১০ মিনিট অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে ধীরে ধীরে টিস্যু পেপার তুলে ঠাণ্ডা জল দিয়ে ত্বক পরিষ্কার করে ফেলুন। আপেলের রস ও লেবুর রস একসাথে মিশিয়ে  লাগালেও উপকার পাওয়া যায়।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য