ওজন কমাতে সাহায্য করবে এই ৪ টি কম ক্যালোরি যুক্ত পানীয়


আজকের পোস্টে আমি আপনাদের সঙ্গে কয়েকটি কম ক্যালোরির যুক্ত পানীয় এর রেসিপি সেয়ার করবো। এই পানীয়গুলি শুধুমাত্র আপনার ওজন কমাতে সাহায্য করবে না, এই পানীয় আপনার শরীরে সঞ্চিত টক্সিনও বের করতে সাহায‍্য করবে। প্রতিদিন সকালে এই পানীয় খালি পেটে পান করুন। আপনি যদি ২ থেকে ৩ মাসের মধ্যে পরিবর্তন দেখতে চান, তাহলে অবশ্যই আপনার নিয়মানুবর্তিতা বজায় রাখাতে হবে। রোজ সকালে একই সময় আপনার প্রিয় কম ক্যালোরি যুক্ত পানীয়টি এক গ্লাস পান করুন এবং একটি নির্দিষ্ট সময় পর ব্রেকফাস্ট সেরে নিন। আমি এখানে আরেকটি কথা উল্লেখ করতে চাই, সব পানীয় কিন্তু সবার জন্য নয়। যেমন আপনার যদি অ্যাসিডিটির সমস্যা থাকে তাহলে লেবু মধু জল কিন্তু অ্যাসিডিটির সমস্যাকে আরও বাড়িয়ে তুলবে। অতএব, আপনি আপনার কম ক্যালোরি যুক্ত পানীয়টি সামগ্রিক স্বাস্থ্যের কথা বিবেচনা করেই  নির্বাচন করুন।



১।  লেবু মধু দারুচিনির জল ঃ

এই পানীয়টি আপনার দৈনন্দিন লেবু ও মধু জলের একটি আপগ্রেড সংস্করণ বলা যেতে পারে।  লেবু ও মধু সঙ্গে দারুচিনি গুঁড়া মিশিয়ে এটি তৈরি করা হয়। স্থূলতা, ডায়াবেটিস এর মতো সমস্যা দূর করতে এই পানীয় দারুন কাজ করে। 

কিভাবে তৈরী করতে হবে ঃ

২৫০ ml ঈষদুষ্ণ জল নিন এতে ৩ টেবিল-চামচ টাটকা লেবুর রস, ১ থেকে ২ টেবিল চামচ মধু এবং ১/৪ চা চামচ দারুচিনি গুঁড়া যোগ করুন। খুব ভাল করে মিশিয়ে নিন। ব্যস! আপনার সুস্বাদু লেবু-মধু-দারুচিনির জল প্রস্তুত ।

২। আমলা-ঘৃতকুমারীর রস ঃ

এই পানীয়টিতে এমন দুটি কার্যকরী উপাদান রয়েছে যা খুব দ্রুত কিছু হলেও আপনার ওজন কমাতে সাহায্য করবে। তবে এই পানীয়টির  স্বাদ কিন্তু আপনাকে সহ্য করতে হবে। 

কিভাবে তৈরী করতে হবে ঃ

একটি খালি গ্লাস নিন এতে ২ চামচ করে আমলকীর রস এবং ঘৃতকুমারী রস মেশান।  এবার জল দিয়ে গ্লাসের বাকি অংশ পূরণ করুন এবং ভাল করে মিশিয়ে নিন। আমলা-ঘৃতকুমারীর রস আজকাল রেডিমেটও পাওয়া যাচ্ছে। 

Read More :
দ্রুত ওজন কমাতে লেবুর ৪ টি ব্যবহার জেনে নিন 

৩। ত্রিফলার জল পান করুন ঃ

মানব দেহের বর্জ্য নিষ্কাশন করা আর ডিটক্সিফাই করায় ত্রিফলার মোকাবেলা আর কেউ করতে পারবে না। এটি শরীরে ফ্যাট সেল জমতে না দিয়ে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে।

কিভাবে তৈরী করতে হবে ঃ

আপনি দুভাবে এই পানীয় তৈরি করতে পারেন। প্রথম কৌশল, আপনি শুকনো ত্রিফলা ব্যবহার করতে পারেন। এই ক্ষেত্রে শুকনো ত্রিফলা ৭ থেকে ৮ ঘন্টা ভিজিয়ে রাখুন। দ্বিতীয় কৌশল, নিয়মিত সেবনের জন্য ত্রিফলার গুঁড়া ব্যবহার করা যেতে পারে। শুধু এক গ্লাস জলে ২ চামচ ত্রিফলা গুঁড়া যোগ করুন এবং ভাল করে মিশিয়ে নিন। এতে সামান্য নুন ও ১/২ চামচ মধু মিশিয়ে সকালে উঠে খালি পেটে জলটা খেয়ে নিন। 



৪। লেবু আদা শসা  জল ঃ

এই পানীয় শরীরের স্থূলতা এবং দ্রুত পেটের মেদ ঝরাতে সাহায্য করে। যাদের ডায়াবেটিক রয়েছে তাদের জন্যও এটি উপযুক্ত।

কিভাবে তৈরী করতে হবে ঃ

এক লিটারের মতো একটি বোতলে, ১/২ ইঞ্চি করে কিছুটা আদা, ২ টি  মাঝারি  আকারের শসার টুকরো এবং  ৩ টি ফ্রেস লেবু টুকরো করে কেটে পুরে নিন। এবার প্লেইন জল দিয়ে বোতলটি পূরণ করুন। বোতলটি ৬ থেকে ৭ ঘন্টার জন্য ফ্রিজ মধ্যে রাখুন।এরপর সারাদিন এই জল প্রতি ঘণ্টায় ঘণ্টায় পান করুন। এতে আপনার ওজন কমার পাশাপাশি শরীরও ডিটক্স থাকবে। 
লেখাটি ভালো লাগলে লাইক ও শেয়ার করুন !
Disclaimer : All the pictures have been taken from Google. 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

1 মন্তব্য