খুশকির জন্য লেবু - এই ৪টি উপায়ে লেবুর ব্যবহার করতে পারেন


খুশকির জন্য লেবু -  এই  ৪টি উপায়ে লেবুর ব্যবহার করতে পারেন


লেবু খুশকির বিরুদ্ধে একটি কার্যকর উপায় হিসাবে পরিচিত। লেবুতে উপস্থিত সাইট্রিক অ্যাসিড চুলের গোড়া থাকে খুশকি দূর করতে সাহায্য করে। এমনকি কি লেবুতে উপস্থিত ভিটামিন সি চুলের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের জন্য খুবই উপকারী। আমরা সাধারণত লেবুর রস শ্যাম্পু করার আধা ঘণ্টা আগে মাথার তালুতে লাগিয়ে রেখে ২০ থেকে ২৫ মিনিট পর  শ্যাম্পু করে নেই। এটি খুশকি দূর করার খুব প্ৰচলিত পদ্ধতি। আজকের পোস্টে আরো কিছু উপায় আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করবো যা খুশকি তো দূর করবেই, পাশাপাশি আপনার   চুলের সার্বিক স্বাস্থ্যের উন্নতির জন্যও জেনে রাখা ভালো। তবে তার আগে জেনে নেই লেবু রসের কিছু উপকারিতা

মাথার ত্বকের তেলতেলে ভাব দূর করে 


মাথার তালু তৈলাক্ত হওয়ার কারণে চুলও তেলতেলে হয়ে যায়। লেবুর শক্তিশালী ভিটামিন সি এই সমস্যার সমাধান করে। 

চুল ঝলমলে করে 

লেবুর রস চুলের রুক্ষতা দূর করে এবং চুল হয়ে উঠে ঝলমলে।  

চুল বৃদ্ধিতে সাহায্য 


হ্যাঁ ঠিকই শুনছেন। নারকেল তেলের সঙ্গে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে চুল ও মাথার তালুতে ম্যাসাজ করলে দ্রুত চুল বৃদ্ধি হয়।

চুল পরিষ্কার করে 

লেবুর রস চুলে প্রাকৃতিক ক্লিনজার হিসেবে কাজ করে। বেকিং সোডার সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে পাতলা মিশ্রণ তৈরি করুন। চুলে লাগান, কিছুক্ষণ রেখে শ্যাম্পু করে ফেলুন। ব্যস!  চুল ও মাথার ত্বক পরিষ্কার। 

এবার আসি যে খুশকি নিয়ন্ত্রণে আপনি আরো কি কি ভাবে লেবু ব্যবহার করতে পারেন। এমন কিছু সহজ এবং কার্যকর কয়েকটি উপায়।

চা এবং লেবু রসের মিশ্রণ 

চা এবং লেবুর শক্তিশালী অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস বৈশিষ্ট্যগুলি খুশকির হাত থেকে মুক্তি পেতে সাহায্য করে। এর জন্য গ্রিন টিও  ব্যবহার করতে পারেন। এক কাপ গ্রিন টি বানিয়ে নিন৷ এতে ৩ চা চামচ লেবু রস মিশিয়ে নিন। স্নানের আগে গোটা চুলে এই মিশ্রণ চুলে ঢালুন এবং ঘষে ঘষে মাথার ত্বকে মিশ্রণটা লাগিয়ে নিন পাঁচ মিনিট ধরে৷ তার পর কোনও মৃদু সালফেটমুক্ত শ্যাম্পু ব্যবহার করে চুলটা ধুয়ে নিতে হবে৷ কন্ডিশনার লাগিয়ে নিন৷ এটি সপ্তাহে ৩ দিন করতে হবে।

লেবু রস  আর টি ট্রি অয়েল

এর জন্য আপনাকে ৩ টেবিলচামচ নারকেল তেল সঙ্গে ৩ টেবিলচামচ লেবু রস সঙ্গে ১০ ফোঁটা টি ট্রি অয়েল মিশিয়ে নিন৷ তার পর মাথার তালুতে ভালো করে মাসাজ করে নিন এই মিশ্রণ৷ এক রাত রেখে পরদিন সকালে মাইল্ড কোনও শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিতে পারেন৷ হাতে সময় না থাকলে অন্তত আধ ঘণ্টা এই মিশ্রণ মাথায় লাগিয়ে রাখুন৷

লেবুর রস এবং ঘৃতকুমারী

সম পরিমানে লেবুর রস ও ঘৃতকুমারীর রস মিশিয়ে নিয়ে পুরো মাথায় চুলের গোড়ায় ঘষে ঘষে মাখুন।  ৩০ মিনিট পর কোনও মৃদু সালফেটমুক্ত শ্যাম্পু ব্যবহার করে চুলটা ধুয়ে নিতে হবে৷ যতদিন না পুরোপুরি খুশকিমুক্ত হচ্ছেন ততদিন পর্যন্ত এই মিশ্রণ ব্যবহার করতে পারেন৷ 

পাতিলেবুর রস আর কমলালেবুর খোসা 


কমলালেবুর খোসা শুকনো করেও পাতিলেবুর রসের সঙ্গে মিশিয়ে নেওয়া যায়৷ ৩ থেকে ৪টি শুকনো কমলালেবুর খোসা আর আন্দাজমতো পাতিলেবুর রস ব্লেন্ডারে দিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন৷ তার পর সেই পেস্টটা মাথায় লাগিয়ে এক ঘণ্টা রেখে হালকা কোনও শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। খুশকির পাশাপাশি সমস্ত দুর্গন্ধের হাত থেকেও মুক্তি পাবেন৷ এটি সপ্তাহে ২ থেকে ৩ বার রিপিট করা যায়৷

কেমন লাগলো আজকের এই টিপস অবশ্যই জানাবেন এবং মনে কোন প্রশ্ন থাকলে নীচের মন্তব্য বাক্সে অথবা ফেসবুক পেজে আপনার প্রশ্ন করুন। আর যদি আপনার এই লেখাটি পছন্দ হয়ে থাকে, তাহলে নীচের সোশাল মিডিয়া বোতামগুলির মাধ্যমে বন্ধুদের এবং পরিবারের সাথে এটি সেয়ার করে নিন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য